Dhaka, Friday, 29 May 2020

বসন্ত এলো ভালোবাসার চাদর বিছিয়ে

2020-02-14 11:37:39
বসন্ত এলো ভালোবাসার চাদর বিছিয়ে

সুখবর প্রতিবেদক: ওরে ভাই, ফাগুন লেগেছে বনে বনে/ডালে ডালে ফুলে ফুলে পাতায় পাতায় রে/আড়ালে আড়ালে কোণে কোণে’।

আজ পহেলা ফাল্গুন। উন্মনা হাওয়ায় মনে দোলা লাগানো বসন্তের প্রথম দিন। প্রকৃতিতে তার ছোঁয়া সবখানে। প্রকৃতি সেজে উঠছে নানা রঙে। ঋতুরাজ বসন্তের আগমনে প্রকৃতির মতো মানুষের মনেও ছড়িয়ে পড়ে বসন্তের রঙ।

বসন্তকে বরণ করে নিতে তাই প্রকৃতির রঙে রঙ মিলিয়ে সবাই মেতে ওঠে উৎসবে। ‘ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক আজ বসন্ত।’বাঙালির প্রিয় কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় বসন্তকে প্রতিভাত করে গেছেন এই একটি বাক্যেই।

বসন্ত আজ এসেছে ফুলবনে, পাতায় পাতায়, পল্লবে পল্লবে। ডালে ডালে পলাশ, শিমুল আর বকুলের সৌরভে শীতের ঝরা পাতার মর্মরে মর্মরে আজ থেকে ধ্বনিত হবে বসন্তের কোকিলের কুহুতান। পৌষ আর মাঘের শীতার্ত দিনগুলোর পরে ফাল্গুন মাসের প্রথম দিনে বাঙালি বরণ করে নেবে তাদের প্রিয় বসন্তকে।

বাঙালি ললনার পরনে হলুদ রঙের শাড়িতে লাল পাড় আর তরুণ-যুবাদের হলুদ পাঞ্জাবি, কোর্তা গায়ে দিয়ে বসন্তের প্রথম দিনে আজ জমজমাট হয়ে উঠবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির চত্বর, বই মেলা, চারুকলার বকুলতলা, শাহবাগ আর রমনার সবুজ প্রান্তর।

প্রকৃতির দক্ষিণা দুয়ারে বইছে ফাগুনের হাওয়া। কোকিলের কণ্ঠে আজ বসন্তের আগমনী গান। ফুলে ফুলে ভ্রমরও করছে খেলা। গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলা।

এবার ভালোবাসার হাত ধরেই এসেছে বসন্ত। এতদিন পহেলা ফাল্গুন মানে বসন্তবরণের প্রথম দিন উদযাপিত হয়েছে ১৩ ফেব্রুয়ারি। হলুদ পোশাকে, গাঁদা ফুল দিয়ে বাঙালি বরণ করে নেয় বসন্তের প্রথম দিনটি। তবে পরদিনই রং বদলে যেত। কারণ ১৪ ফেব্রুয়ারি থাকে ভালোবাসা দিবস। ভ্যালেন্টাইনস ডে। এ দিন শিশু থেকে যুবা- সবার হাতে হাতে লাল গোলাপ। পোশাকেও থাকে লাল-নীলের প্রাধান্য। প্রকৃতির কোলে নেমে আসে অনাবিল আনন্দ। তবে এবারই প্রথম বসন্ত আর ভালোবাসা দিবস একই দিনে উদযাপিত হচ্ছে। আজ তাই বসন্তের রং ভালোবাসার রঙে মিশে একাকার। এ জন্যই প্রকৃতিও বুঝি বসন্ত বাতাসে ভালোবাসার আবেগমাখা সুবাস ছড়িয়ে দিয়েছে।

এদিকে বসন্ত আর ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাকের পসরা সাজিয়েছে। এবার বসন্ত আর ভালোবাসা দিবস এক দিনে হওয়ায় ডিজাইনার পোশাকের রঙেও বৈচিত্র্য এনেছেন। এ ছাড়া ব্যতিক্রমী এ দিনটি উদযাপনে বিভিন্ন সংগঠন নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। নাম করা হোটেল ও রেস্টুরেন্ট বিশেষ লাঞ্চ ও ক্যান্ডললাইট ডিনারের ব্যবস্থা করেছে। টেলিভিশনে আজ প্রচার হবে বিশেষ অনুষ্ঠান। বিভিন্ন মোবাইলফোন কোম্পানির উদ্যোগে রাজধানীর কয়েকটি স্থানে কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছে।

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘বসন্ত উৎসব ১৪২৬’আয়োজনের উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় বসন্ত উদ্যাপন পরিষদ। এ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় সকাল ৭টা থেকে বেলা ১১টা এবং বেলা সাড়ে ৩টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত, ধানমন্ডির রবীন্দ্রসরোবর মঞ্চ সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত, সদরঘাট-সংলগ্ন ওয়াইজঘাট বুলবুল ললিতকলা একাডেমির মাঠ (বাফা) এবং উত্তরার ৩ নম্বর সেক্টরের রবীন্দ্রসরণির উন্মুক্ত মঞ্চে বিকেল ৪টা থেকে সাড়ে রাত ৮টা অবধি বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে।

চারুকলা অনুষদের বকুলতলায় সকাল ৭টায় সুস্মিতা দেবনাথ ও সহশিল্পীদের ধ্রুপদি সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ হয়।





উৎসব ও পার্বণ সর্বশেষ খবর

উৎসব ও পার্বণ এর সকল খবর