Dhaka, Monday, 01 June 2020

ভোক্তা দেশগুলো জ্বালানি তেল কিনতে পারবে অর্ধেক দামে

2020-05-11 15:15:36
ভোক্তা দেশগুলো জ্বালানি তেল কিনতে পারবে অর্ধেক দামে

সুখবর ডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারীতে বিশ্বজুড়ে অস্বাভাবিক হারে কমেছে তেল বিক্রি। ফলে একের পর এক কমছে তেলের দাম। গত মাসের তুলনায় তেলের দাম নেমেছে অর্ধেকে। সোমবার (১১ মে) থেকে কার্যকর হবে নতুন মূল্য।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী সৌদি আরবে প্রতি লিটার পেট্রোলের দাম এখন ০.৬৭ পয়সা (হালালা) এবং প্রতি লিটার অকটেনের দাম এখন ০.৮৬ পয়সা (হালালা)। যা গতকাল রবিবার পর্যন্ত ছিল যথাক্রমে ১.১৩ ও ১.৪৭ সৌদি রিয়াল প্রতি লিটার।

এর আগে সোমবার (২৭ এপ্রিল) এ মহামারীতে বিশ্ব বাজারে তেলের চাহিদা কমে তলানিতে নামে। বিশ্ববাজারে একসময় যে তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ১০০ ডলারের ওপরে ছিল তা ১৫ ডলারে নেমে আসে। যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরবসহ রপ্তানিকারক দেশগুলোতে বিক্রি না থাকায় মজুদ বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে অশোধিত তেলের দাম ১.৪৯ ডলার বা ৮.৮ শতাংশ কমে প্রতি ব্যারেল হয়েছে ১৫.৪৫ ডলার। লন্ডনের ব্রেন্ট তেলের দাম ৪৪ সেন্ট বা ২.১ শতাংশ কমে প্রতি ব্যারেল হয়েছে ২১ ডলার। এছাড়া গত ৯ সপ্তাহের মধ্যে ৮ সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্রের অশোধিত তেলের দাম ৭ শতাংশ এবং ব্রেন্ট তেলের দাম ২৪ শতাংশ কমে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে তেলের ইতিহাসে দাম শূন্য ডলারের নিচে নেমে যায়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ২০১৩ সালে জ্বালানি তেলের দাম ১১০ ডলার ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে অর্থনৈতিক মন্দার জেরে দাম কিছুটা কমেছিল। কিন্তু এখন করোনা মহামারির কারণে বিশ্বজুড়ে শিল্প কারখানা সব বন্ধ। এতে করে তেলের দাম কমে গেছে। গত দুই মাসে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের চাহিদা কমেছে ৩০ শতাংশ।

সিডনিতে সিএমসি মার্কেটের প্রধান বিশ্লেষক মিখায়েল ম্যাকার্থি বলেন, তেলের দাম কমার কারণ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে বিপুল মজুদ থাকলেও বিশ্ববাজারে চাহিদা কমেছে ব্যাপকভাবে।

এর আগে গত ২১ এপ্রিল আমেরিকায় তেলের দাম ডলারের নিচে নেমে এসেছিল। অর্থাৎ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো জ্বালানি তেল বা ফুয়েলের দাম নেমে যায়।

সূত্র: রয়টার্স।





ভিনদেশ ও ভিনজগৎ সর্বশেষ খবর

ভিনদেশ ও ভিনজগৎ এর সকল খবর