Dhaka, Monday, 01 June 2020

খাদ্য সহায়তা নিয়ে মানুষের পাশে ছুটে চলেছেন যুবলীগ নেতা সৈকত

2020-05-20 22:03:30
খাদ্য সহায়তা নিয়ে মানুষের পাশে ছুটে চলেছেন যুবলীগ নেতা সৈকত

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাস মহামারীতে খাদ্য সংকটে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ ও বর্তমানে যুবলীগ নেতা সৈয়দ আলাউল ইসলাম সৈকত। বিশেষ করে যে পরিবারগুলো বিপদগ্রস্ত, কিন্তু সহায়তা নিতে অস্বস্তি বোধ করছেন তাদের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন তিনি। খবর পেলেই নিজ উদ্যোগে তিনি বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসছেন খাবার। এমন সংকটে খাবার পেয়ে এই মধ্য ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো উপকৃত হচ্ছেন।

বর্তমানে করোনা সৃষ্ট পরিস্থিতিতে আত্মমর্যাদাশীল মধ্য ও নিম্নমধ্যবিত্ত শ্রেণীর একাংশ দ্বিমুখী সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন। এই অংশটি লাইনে দাঁড়িয়ে খাদ্যসামগ্রী নিতে সংকোচ বোধ করছেন আবার প্রকাশ্যে কারো কাছে সাহায্য চাইতেও পারছেন না। তাদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছেন তিনি।

আলাউল ইসলাম সৈকত জানান, প্রতিটি জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও গ্রাম পর্যায়ে খাদ্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছে দেওয়ার নিশ্চয়তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাঁর নির্দেশনার সফল বাস্তবায়নের জন্যই যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের পরামর্শে এ কার্যক্রমে হাত দিয়েছেন তিনি।

গত ৬ এপ্রিল সৈকতের নেতৃত্বে সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ, যুবলীগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, ডাকসু’র সম্পাদক এবং ওয়ার্ড যুবলীগের সমন্বয়ে একটি টিম গঠন করা হয় ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের (তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল) আওতাধীন পূর্ব নাখালপাড়ায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের জন্য।

সেখানে যুক্ত সদস্যরা কাকে সাহায্য করতে হবে বা কে সাহায্য চেয়েছেন তাদের যোগাযোগ নম্বর এবং ঠিকানা সংগ্রহ করেন। পরবর্তীতে লিস্ট অনুযায়ী বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাড়ে তিনশ পরিবারের মধ্যে সফলতার সাথে খাদ্য সহযোগিতা নিশ্চিত করেন।

সৈকত বলেন, সাহায্য প্রদানের ক্ষেত্রে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ‘মানবতার ডাক’নামক একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করি এরং আমার ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজ প্রচারণার মাধ্যমে নম্বরসহ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। কখনও কেউ নিজের জন্য সাহায্য চায়, কিংবা কখনো অন্যের জন্য। আমি সেইসব ঠিকানা ও ফোন নম্বর সংগ্রহ করে রাখি। শুভাকাঙ্ক্ষী মহল থেকেও বিপদগ্রস্ত পরিবারের তথ্য সহযোগিতা পাই। যাদের ইমার্জেন্সি সাহায্য প্রয়োজন সেই ভিত্তিতে একটি তালিকা তৈরি করি। তালিকার হিসেবে পণ্যগুলো আমি কিনি, বাসায় নিজেই প্যাকেট করি। এরপর কখনো নিজেই বা কখনো অন্যের সহযোগিতায় মোটরসাইকেলে নির্দিষ্ট সাহায্যপ্রার্থীর ঠিকানায় পৌঁছে দেই।

তিনি আরো বলেন, নিরাপদ এই প্রক্রিয়াটি উপলব্ধি করে মানসিকতা আছে এমন সামর্থ্যবানরা দুঃসময়ে অসহায় মানুষগুলোর পাশে এসে দাঁড়াবে এটাও এই উদ্যোগের একটি উদ্দেশ্য।

তার এই কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা করছেন যুবলীগের সাবেক তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিষয়ক উপ-সম্পাদক মোঃ শামসুল আলম অনিক, ২৫ নম্বর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা এলাকার যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম ইয়াসিন তরুণ, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুব আল গনি সোহেল।

‘মানবতার ডাক’গ্রুপের কার্যক্রম সম্পর্কে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুব আল গনি সোহেল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এবং কেন্দ্রীয় যুবলীগের আহবানে এই মুহূর্তে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো গ্রুপের মূল লক্ষ্য। ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতৃত্ব এস এম জাভেদ লাভলু, স‌ফিউল আলম প্রধান কমল, আজিজুর রহমান, মাহমুদুল হাসান, শেখ সা‌লেহ উদ্দিন ড্যা‌নি‌য়েল, ডাকসুর স্পোর্টস সেক্রেটারি শাকিল আহমেদ তানভীর, ঢাকা ইউনিভার্সিটি এমআইএস ডিপার্টমেন্ট এর চেয়ারম্যান ড. আকরাম হোসাইন মিথুন, ভূতত্ত্ব বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ড. মোস্তাফিজুর রহমান, ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষক ড. রায়হান সরকার রিজভী, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের শিক্ষক ইব্রাহিম মিয়াসহ আরো অনেকে।





মাতা ও মাতৃভূমি সর্বশেষ খবর

মাতা ও মাতৃভূমি এর সকল খবর