Dhaka, Tuesday, 11 August 2020

টাঙ্গাইলের এই গরুটির ওজন ৩৫ মণ! দাম হাঁকছেন ২০ লাখ টাকা

2020-07-28 10:24:00
টাঙ্গাইলের এই গরুটির ওজন ৩৫ মণ! দাম হাঁকছেন ২০ লাখ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুখবর ডটকম: করোনা মহামারীর এই সময়ে ফেসবুকভিত্তিক অনলাইন হাটেই এবার জমে উঠেছে কোরবানির পশুর বেচাকেনা। অনলাইনে গরুর ছবি, লাইভ ওজন, বয়স, দাঁত, দামসহ বিভিন্ন তথ্যজুড়ে দেওয়া হচ্ছে। আগ্রহী ক্রেতারা অনলাইন থেকে গরু-মহিষ, খাসি, ভেড়া কিনছেন। এরই মধ্যে টাঙ্গাইলের বিশাল আকৃতির একটি গরু সবার মনযোগ কেড়েছে।গরুটির ওজন ৩৫ মণ। গরুটির নাম দেয়া হয়েছে ‘মিস্টার বাংলাদেশ’। টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় নিজ বাড়িতে গরুটি লালন-পালন করছেন অধ্যক্ষ আমিনুজ্জামান। তিনি গরুটির দাম হেঁকেছেন ২০ লাখ টাকা। এখন পর্যন্ত এর দাম উঠেছে ১৩ লাখ টাকা।

আমিনুজ্জামান জানান, কালো-সাদা রঙের এ গরুর বয়স ৪ বছর। তিনি গরুটিকে ঘাস, লতা-পাতা, খৈল, খড়, ভাতের মাড় খাইয়ে বড় করেছেন। গরুটি লম্বায় ১১ ফুট ৬ ইঞ্চি, উচ্চতায় ৬ ফুট ২ ইঞ্চি এবং ওজন ৩৫ মণ। খুবই শান্ত ও রোগমুক্ত এবং স্বাস্থ্য ঝুঁকিমুক্ত ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড়টি তিনি ভার্চুয়াল হাটেই বিক্রি করতে চান। করোনাভাইরাস ঝুঁকির কারণে তিনি হাটে তুলতে চান না গরুটি। বর্তমানে গরুটি দেলদুয়ার উপজেলার আতিয়া গ্রামে এর মালিক অধ্যক্ষ আমিনুজ্জামানের বাড়িতেই রয়েছে। আমিনুজ্জামান দেলদুয়ার মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী ডিগ্রি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ। তিনি ফেসবুকে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন। যোগাযোগের নম্বরও দিয়েছেন। সেখানে তিনি দামও উল্লেখ করেছেন।

অধ্যক্ষ আমিনুজ্জামান জানান, গরুটিকে মোটাতাজাকরণের ওষুধ ও ইনজেকশন এমন কোনো কিছুই প্রয়োগ করা হয়নি। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবার খাইয়ে বড় করা হয়েছে। পাশাপাশি সম্পূর্ণ কৃষি সম্প্রসারণ অনুমোদিত মেশিনে তৈরি খাবার ও বিজ্ঞানসম্মত সঠিক পরিচর্যা করা হয়েছে। চার দাঁতের গরুটির বয়স চার বছর। প্রতিদিন গ্রামের অসংখ্য মানুষ গরুটিকে দেখতে আসেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের কর্মকর্তারাও গরুটির স্বাস্থ্য বিষয়ক খোঁজ খবর নিচ্ছেন। ইতিমধ্যে অনেকেই গরুটি কেনার আগ্রহ দেখিয়েছেন। কিন্তু দাম বনিবনা না হওয়ায় এখনো বিক্রি হয়নি।





কৃষি ও প্রাণিসম্পদ সর্বশেষ খবর

কৃষি ও প্রাণিসম্পদ এর সকল খবর