Dhaka, Monday, 10 August 2020

‘করোনা ভ্যাকসিন আনার দৌড়ে রাশিয়াই হতে পারে বিশ্বে প্রথম’

2020-07-30 11:38:17
‘করোনা ভ্যাকসিন আনার দৌড়ে রাশিয়াই হতে পারে বিশ্বে প্রথম’

ডেস্ক রিপোর্ট, সুখবর ডটকম: রাশিয়া দাবি করেছে, ১০ থেকে ১২ আগস্টের মধ্যে করোনাভাইরাস টিকা আনতে চলেছে তারা। সত্যিই যদি তা হয়, তবে তারাই বিশ্বে প্রথম দেশ হিসেবে এই বহু প্রতীক্ষিত টিকা আনছে।

টিকাটি তৈরি করেছে মস্কোর গামালেয়া ইনস্টিটিউট ও রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড। সংশ্লিষ্ট সংস্থায় রেজিস্ট্রেশনের পর ৩ থেকে ৭ দিনের মধ্যে তা সাধারণের জন্য বাজারে আনা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এর আগে রাশিয়ার সরকার মালিকানাধীন সংবাদমাধ্যম আরআইএ নভোস্তি দাবি করে, ১৫ থেকে ১৬ আগস্টের মধ্যে টিকাটি অনুমোদন পেতে পারে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রক দাবি করেছে, নির্দিষ্ট নিয়মনীতি মেনেই তাদের করোনা টিকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে, গবেষণার সময়সীমা কমিয়ে আনার কোনও চেষ্টা করা হয়নি।

রুশ কর্মকর্তারা জানান, আগামী ১০ আগস্ট অথবা তার আগে ভ্যাকসিনটির অনুমোদনের লক্ষ্যে তারা কাজ করছেন। ভ্যাকসিনটি জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত হবে। তবে মহামারী মোকাবিলায় নিয়োজিত সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মীরা প্রথমে ভ্যাকসিনটি পাবেন।

সোভিয়েত আমলে ১৯৫৭ সালে বিশ্বের প্রথম স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণের কথা উল্লেখ করে রুশ সার্বভৌম সম্পদ তহবিলের প্রধান কিরিল দিমিত্রিয়েভ বলেন, ‘এটি একটি স্পুটনিক মুহূর্ত।’ তিনি বলেন, স্পুটনিকের হুইসেল শুনে আমেরিকানরা অবাক হয়েছিলেন। এই ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রেও একই অনুভূতি হবে। ভ্যাকসিন আনার কাজে রাশিয়াই প্রথম হবে।

এদিকে সমালোচকরা বলছেন, দেশটি তীব্র রাজনৈতিক চাপের মধ্যে এই ভ্যাকসিন আনার জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে; যা রাশিয়াকে বৈশ্বিক বৈজ্ঞানিক শক্তি হিসেবে তুলে ধরতে আগ্রহী।

রাশিয়ায় ৮ লাখের বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, বিশ্বের নিরিখে যা চতুর্থ। সকলের আগে টিকা বার করার তাগিদে তারা জানিয়ে দিয়েছে, মানব দেহে পরীক্ষার মাত্র তিন মাসের মধ্যে তারা বুঝতে পারবে টিকা কাজ করছে কিনা। যদিও এত গুরুত্বপূর্ণ টিকা নিয়ে এই তাড়াহুড়ো অন্যান্য দেশের মনঃপূত নয়।

পাশাপাশি রাশিয়ার একটি সরকার অনুমোদিত ভাইরোলজি ইনস্টিটিউট দেশের দ্বিতীয় করোনা টিকার মানব দেহে পরীক্ষা শুরু করেছে। ২৭ তারিখ তারা টিকা প্রয়োগ করেছে ৫ স্বেচ্ছাসেবীর শরীরে। তারা ভাল আছেন বলে এখনও পর্যন্ত খবর।

এছাড়া রুশ ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা আর-ফার্ম ব্রিটিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। অ্যাস্ট্রা ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় যে করোনা টিকা তৈরি করছে, তা প্রস্তুত করবে তারা। কদিন আগে ইংল্যান্ড, কানাডা ও আমেরিকা একযোগে অভিযোগ করে, রুশ হ্যাকাররা তাদের করোনা টিকা ও ওষুধ সম্পর্কিত গবেষণা চুরির চেষ্টা করছে। রুশ করোনা টিকা দ্রুত আসতে চলেছে দাবি করে রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড দাবি করেছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে চুক্তিই দেখিয়ে দিচ্ছে, মস্কোর কিছু চুরির দরকার নেই।

এ বছরই রাশিয়া ৩ কোটি করোনা টিকার ডোজ তৈরি করতে পারে, আর ১৭ কোটি ডোজ তৈরি করতে পারে বিদেশে। ৫টি দেশ এই টিকা তৈরিতে আগ্রহ দেখিয়েছে বলে দাবি করেছেন রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের প্রধান কিরিল ডিমিত্রিয়েভ। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন করোনা টিকা তৈরিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছেন।





স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সর্বশেষ খবর

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা এর সকল খবর