শনিবার, ১৩ই এপ্রিল ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৩০শে চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বন্ধ্যাত্বের অন্যতম কারণ এন্ডোমেট্রিয়োসিস, যেসব লক্ষণে সতর্ক হবেন

স্বাস্থ্য ডেস্ক

🕒 প্রকাশ: ০২:৩৫ অপরাহ্ন, ২রা এপ্রিল ২০২৪

#

ছবি : সংগৃহীত

অনেক নারীই পিরিয়ডের সময় তীব্র যন্ত্রণায় ভোগেন। কারো কারো ক্ষেত্রে এই ব্যথা দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। আবার অনেকের ক্ষেত্রে পিরিয়ড শুরু হওয়ার পাঁচ থেকে সাত দিন আগে থেকেই যন্ত্রণা শুরু হয়। আপনিও কি এমন সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে হতে পারে এটি এন্ডোমেট্রিয়োসিসের লক্ষণ। 

এই রোগ থাকলে সন্তান ধারণে সমস্যা হয়। তাই এন্ডোমেট্রিয়োসিসের লক্ষণ দেখা দিলে অবশ্যই বাড়তি সতর্কতা গ্রহণ করতে হবে। 

জরায়ুর ভিতরের একটি স্তর এন্ডোমেট্রিয়াম। প্রতি মাসে এই অংশের স্তর খসেই ঋতুস্রাব হয়। সেই রক্ত সন্তান প্রসবের পথ দিয়ে জরায়ু থেকে বেরিয়ে শরীরের বাইরে চলে আসে। কিন্তু এন্ডোমেট্রিয়াম যদি জরায়ুর বাইরে, তলপেটের যে কোনো জায়গায় বা শরীরের অন্য কোথাও চলে আসে তখন তাকে বলে এন্ডোমেট্রিয়োসিস। 

শরীরের অন্য কোথাও এন্ডোমেট্রিয়াম চলে গেলে, সেখানে ওই স্তর খসে যে রক্তপাত হয়, তা ঠিকমতো বের হতে পারে না। বরং সেই স্থানেই জমাট বাঁধতে শুরু করে। এতে আশপাশের কোষগুলোতে চাপ তৈরি হয়। এর থেকে সিস্ট হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। ডিম্বাশয়, তলপেটের পিছনে, মূত্রথলি, বর্জ্য নির্গমনের পথ, সন্তান নির্গমনের পথের গোড়ায় এন্ডোমেট্রিয়াম বেশি দেখা যায়। এই রোগকেই এন্ডোমেট্রিয়োসিস বলা হয়।

আরো পড়ুন : রমজানে কিডনি রোগীর সতর্কতা

এই রোগটির অন্যতম কারণ অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস। বিশেষ করে ‘জাঙ্ক ফুড’ বা বাইরের ভাজাভুজি, তেল-মশলাদার খাবার খাওয়ার ফলে অন্ত্রের ভালো ব্যাকটেরিয়া নষ্ট হয়ে যায় আর খারাপ ব্যাকটেরিয়া তৈরি হয়। খারাপ ব্যাকটেরিয়া কোষে কোষে সংক্রমণ ঘটায় এবং কোষগুলি এন্ডোমেট্রিয়োসিস কোষে পরিবর্তিত হয়ে যায়। মানসিক চাপের কারণে খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম হলে সেটি এই রোগের আশঙ্কা বাড়ায়। 

যেসব উপসর্গ দেখলে আগে থেকেই সতর্ক হবেন?

তীব্র যন্ত্রণা 

পিরিয়ডে অনেকেরই পেটে তীব্র যন্ত্রণায় হয়। কিন্তু এন্ডোমেট্রিয়োসিসের সমস্যা থাকলে এই ব্যথা বহু গুণ বেড়ে যায়। এমনকি ঋতুস্রাব শুরু হওয়ার আগে এবং শেষ হয়ে গেলেও বেশ কিছু দিন পর্যন্ত এই ব্যথা থাকে। তলপেট ও কোমরেও ব্যথা হয়।

যৌন মিলনে ব্যথা 

এন্ডোমেট্রিয়োসিসের কারণে যৌন মিলনের সময়ে ব্যথা হতে পারে। মিলনের পরেও এই ব্যথা বেশ কিছু দিন থাকে। এমন সমস্যা হলে সতর্ক হোন। 

প্রস্রাবের সময় তলপেটে যন্ত্রণা 

এন্ডোমেট্রিয়োসিস থাকলে মলত্যাগ করার সময়ে এবং প্রস্রাব করতে গেলেও তলপেটে যন্ত্রণা হতে পারে। ঋতুস্রাব চলার সময়ে এই সমস্যাগুলো আরও বেড়ে যায়।

অতিরিক্ত রক্তপাত 

এন্ডোমেট্রিয়োসিসের কারণে ঋতুস্রাবের সময়ে অতিরিক্ত রক্তপাত দেখা যেতে পারে। দু’মাসের ঋতুস্রাবের নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে ‘ইন্টারমেন্সট্রুয়াল ব্লিডিং’-ও হতে পারে।

সন্তানধারণে সমস্যা 

সবার ক্ষেত্রে না হলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে এন্ডোমেট্রিয়োসিসের সমস্যা থাকলে রোগীর সন্তানধারণে সমস্যা তৈরি হয়। একাধিকবার সন্তানধারণের চেষ্টা করার পরেও সফল না হলে চিকিৎসকের সঙ্গে এই বিষয় কথা বলুন।

এছাড়াও এন্ডোমেট্রিয়োসিসের সমস্যা থাকলে ক্লান্তি, কোষ্ঠকাঠিন্য, মাথাঘোরার মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এসব সমস্যা থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। 

এস/ আই.কে.জে/ 


বন্ধ্যাত্ব এন্ডোমেট্রিয়োসিস

খবরটি শেয়ার করুন